কিভাবে একজন ভালো বন্ধু হওয়া যায়

0
1173
কিভাবে একজন ভালো বন্ধু হওয়া যায়
5 (100%) 1 vote

বন্ধু হচ্ছে পৃথিবীর সব চাইতে মধুর সম্পর্ক। যার উপর নির্ভর করে অনেক অসম্ভবকেও সম্ভব করা যায়। যেমন: আজকের এই ফেসবুক, গুগল, টুইটার তাঁর একটি অনুপম দৃষ্টান্ত। বন্ধু মানে হচ্ছে, শেয়ারিং, বিশ্বাস, ভালবাসা , আর আনন্দ। একজন ভালো বন্ধু হচ্ছে আল্লাহর একটি সুন্দর দান; যা পৃখিবীর অনেক কিছু থেকেও শ্রেষ্ঠ। বন্ধু মানুষের জীবনের এমন একটি উপাদান যা অস্বীকার করে বেঁচে থাকা যায় না। তাই বন্ধু অপরিহার্য বলা চলে।

একজন মানুষের বেঁচে থাকার ইচ্ছেশক্তি বাড়িয়ে দেয় একজন ভালো বন্ধু। বন্ধু এমন প্রিয় একজন, যে কিনা আত্মার আত্মীয়। বন্ধু হতে হয় অনেক বিশ্বাসী। অনেক দায়িত্ববান। যার ওপর ভরসা করা যায় নিশ্চিন্তে। একে অপরকে বিশ্বাস করে গভীরভাবে এবং দায়িত্ববোধ অনুভব করে।

মোট কথা ভাল এবং প্রকৃত বন্ধুর কোন জুড়ি নেই। বন্ধুত্ব শুধু করলেই হয় না, সমান তালে তা রক্ষা করতে হয়। বন্ধুর চাহিদা এবং মানুষিকতাকে অনুশীলনের মাধ্যমে গুরুত্ব দিয়ে নিঃস্বার্থ তার উপকার করতে হয়। তবেই অটোমেটিক রেজাল্ট পেয়ে যাবেন আপনি। আপনি চাওয়ার আগেই হেল্প পাবেন কার কাছ থেকে? যাকে আপনি চাওয়ার আগেই হেল্প করেছেন। বিষয়টি নিতান্তই এমন।

ভাল বন্ধু হতে হলে আমাদের যা করা উচিৎ:

  • প্রকৃত বন্ধু হওঃ

    পৃখিবীতে ভালো মানুষ বা ভালো বন্ধু পাওয়া কঠিন ব্যাপার। কিন্তু হাঁজারও মানুষের মধ্যে তুমি একটু ভিন্ন হও আর প্রমান কর যে তুমিই প্রকৃত ব্যাক্তি।

  • ধর্ম বিশ্বাসে আঘাত করো নাঃ

    ধর্ম আর বন্ধু দুইটি আলাদা বিষয় তাই কখনও বন্ধুকে ধর্মিয় বিষয়ে আঘাত করোনা। কিন্তু নিজের ধর্মের ভাল বিষয় গুলো শেয়ার কর।

  • একজন সৎ বন্ধু হওঃ

    সৎ লোকের বড়ই অভাব এই পৃখিবীতে। মানুষ কেউই বলতে পারবে না যে আমি সৎ বা ধার্মিক কারন পাপেই আমাদের জন্ম হয়েছে। কিন্তু তবুও আমরা যেন সৎ খাকতে চেষ্টা করি। তুমি যদি নিজেকে সৎ মনে কর তাহলে নিজের ভূল স্বীকার কর, এবং তোমার বন্ধু যদি ভুল করে তবে তাকে বুঝাও এবং সে যদি ভূল করে খাকলে তাকে ক্ষমা কর। সৎ হতে হলে আমাদের শিশুর মত হতে হবে যাদের কোন পাপ নাই।
    নোট: একজন অসৎ ব্যক্তিকে কখনও বন্ধু হিসেবে ভেবনা যে কিনা; পিছনে তোমার নামে কুৎসা রটায় আর সামনে ভালো মানুষ সাজে।”

  • বন্ধুর প্রতি অনুরক্ত হওঃ

    যদি তোমার বন্ধু পূর্ন বিশ্বাসে তোমায় কিছু বলে তাহলে তুমি তা শোন আর বিশ্বাস কর। কখনও তুমি তোমার বন্ধুর নামে পিছনে কুৎসা রটিও না বা তাকে ঠাট্টার পা্ত্র করোনা। তোমার দেহের বাহিরটা যেমন ভেতরটাও যেন তেমনই হয়। যদি তোমার বন্ধুর নামে তোমার কাছে কেউ বলে যা ভুল ,তাহলে তুমি তাকে বলে দাও যে আমি আমার বন্ধুকে চিনি, জানি, অন্য কোন বিষয় থাকলে বল। বন্ধুকে নিয়ে এমন কোন কখা তুমি পিছনে বলোনা যার মুখো মুাখি উত্তর দিতে তুমি ভয় পাও। তুমি কখনও দুই দিকে খেলনা। সব সময় সরল খাকো। জানোতো দুই নৌকায় পা দেবার ফল কি?
    নোট: যে বন্ধুকে তুমি চেন তাকে অন্যের কাছে কখনও ছোট করোনা।

  • সম্মান করঃ

    যদি তোমার বন্ধু তোমাকে কোন কিছু গোপন রাখতে বলে তাহলে তা গোপন রাখ, কারো সাথে শেয়ার করনা। বন্ধুর প্রতি একটু সম্মান দেখোলে বন্ধুত্বের মধ্যে বিশ্বাস আরো বেড়ে যায়।

  • ভালো উপদেশ দাওঃ

    মানুষ মাত্রই আমরা ভূল করে থাকি; যদি কেউ বলে আমি যা বলি বা করি তাই ঠিক, সত্য তাহলে সে আসলই বোকা। তাই তুমি যদি মনে কর যে তোমার বন্ধু কোন বিষয়ে ভূল করছে তাহলে তুমি তাকে বুঝাও। যদি তোমার বন্ধু বুদ্ধিমান/বুদ্ধিমতি হয় তাহলে সে তোমার কথা অবশ্যই শুনবে। কোন বিষয়ে অঙ্গীকার করনা যা তুমি রাখতে পারবে না। মনে রেখ বন্ধুত্ব সৃষ্টি হয় বিশ্বাসের দ্বারা; তাই কখনও বিশ্বাস ভঙ্গ করনা। তোমার একটু অবিশ্বাসই তোমাদের সুন্দর বন্ধুত্বে ভাঙ্গন ধরাতে পারে।

  • কখনও স্বার্থপর হইওনাঃ

    স্বার্থপরতা পৃখিবীর সব চাইতে খারাপ বিষয় গুলোর একটি যা একটি পাপও বটে; তাই এই বিষয়টা সব সময় এড়িয়ে চল। কখনও স্বার্থের জন্য বন্ধুকে কে ব্যবহার করনা। যা কিছু করবে তা তুমি তোমার বন্ধুত্বের দাবিতেই কর। কখন স্বার্থ ফুরালে কেটে পড়না…না না না।

  • friendship-1

  • শেয়ার কর যা ইচ্ছা তাইঃ

    পৃখিবীতে বন্ধু হচ্ছে এমন একজন মানুষ যার কাছে সব মনের কখা বলা যায় বা শেয়ার করা যায় সব কিছুই…।
    কিন্তু মনে রেখ যে কোন কিছু যেন মন্দতায় না হয়। যেমন:তুমি তোমার বন্ধুকে ব্যভিচার করার জন্য আকৃষ্ট করতে পারোনা কিন্তু কিভাবে বিবাহিত জীবনে সুখি খাকতে হয় তা নিয়ে আলোচনা করতে পারো।
    নোট: মনে রেখ মানুষ অন্য যেকোন পাপ করলে তার ক্ষমা আছে; কিন্তু দেহের সাথে যে পাপ(ব্যভিচার) করে তার কোন ক্ষমা নাই।

  • বন্ধুর বিপদে তার পাশে থাকঃ

    শুধুমাত্র সুখের দিনে নয় বড়ং দুঃখের দিনেও বন্ধুর পাশে থাক সব সময়। এটাই আসল বন্ধুর কাজ…

  • কখনও বিশ্বাস ভঙ্গ করনাঃ

    যদি তোমার বন্ধু তোমাকে বিশ্বাস করে আর তুমি তাকে; তাহলে কখনও কোন কারনে তার বিশ্বাস ভঙ্গ করনা যেন পরে কোন কৈফতের মুখো মুখি তোমাকে না দাড়াতে হয়।

  • কখনও বন্ধুর পরিক্ষা করোনাঃ

    বন্ধুকে কখনও পরিক্ষা করনা তাহলে সেটা অবিশ্বাসের কাজ হবে। আমি আমার এক বন্ধুর সাখে একটু ফান করে ছিলাম কিন্তু ও আমায় ভুল বুঝেছিল মনে করেছে আমি ওর পরিক্ষা নিয়েছি তাই ও আমার সাখে কথা বলে না… ।

  • সবসময় খোঁজখবর রাখাঃ

    ফোনে কথা বলা, ফেসবুকে চ্যাট, সময় বের করে দুজনে কফিতে চুমুক দিয়ে আড্ডা। কখনোই একেবারে বিচ্ছিন্ন হয়ে যেওনা না। এই সময়টুকু দুজনেই ভীষণ উপভোগ কর। শুধু তাই না, নিয়মিত যোগাযোগ রাখলে দুজনেরই আনন্দ বাড়বে।

কেউ চাইলেই ভালো বন্ধু পায় না। আবার চাইলেও ভালো বন্ধু হওয়া যায় না। এ জন্য দরকার ভালো মন-মানসিকতার। অন্তর হতে হয় শুভ্র ও পবিত্র। একজন ভালো বন্ধু সবসময় বন্ধুর জন্য শুভকামনা করে। একজনের কষ্টে অন্যজন হয় ব্যথিত। আর এটাই হল বন্ধুর গুণ। বন্ধুর সঙ্গে বন্ধুর থাকে দারুণ বোঝাপড়া। বন্ধুর কাছে যা প্রত্যাশা থাকে তা হল – শেয়ারিং, শুভকামনা, চোখের আড়াল হলে মনটা কেমন করা। উপরের টিপস গুলো মনে রাখলে ভালো বন্ধু হওয়া সম্ভব।

Shaila Shahanaj

Shaila Shahanaj

Shaila Shahanaj lives with deep passion of in psychology. She have expertise in behavior and mind, embracing all aspects of conscious and unconscious experience as well as thought.
Beside she loves music and read lots of books.
Shaila Shahanaj

Comments

লেখাটি পড়ে কেমন লাগলো ?

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY