নখে নেইল পলিশের নকশার টিপস

0
1354
নখে নেইল পলিশের নকশার টিপস
5 (100%) 1 vote

আপনার ড্রেসিং সেন্স অসাধারণ। কী বাড়িতে, কী বাইরে! আপনার পোশাকআশাকে সবসময়ই রুচিশীলতার পরিচয় মেলে। ধোপদুরস্ত আউটফিট পরেছেন, পায়ে মানানসই জুতো। সঙ্গে স্টাইলিশ জাঙ্ক জুয়েলারি। কিন্তু, ওদিকে হাতের অবস্থা শোচনীয়। কোনও নখে নেল পলিশ লেগে আছে, তো কোনওটার আবার অর্ধেক উঠে গেছে। আপনার এই ছোট্ট ভুলের কারণে কিন্তু পুরো স্টাইলটাই মাটি হয়ে যেতে পারে। তাই এখন থেকে নজর থাকুক নখেও। নেইল পলিশ লাগাতে হবে মানে, যখন তখন যা খুশি রঙের নেল পলিশ লাগালেই হবে না। তার জন্য স্থান, কাল, পাত্রটাও মাথায় রাখা জরুরি। ধরুন, দিনের বেলার বন্ধুদের সঙ্গে বেরোলেন, সেক্ষেত্রে আপনার ড্রেস যদি ফ্লোরাল ম্যাক্সি, জাম্পসুট বা ডেনিম হয়, নখের রং অবশ্যই হওয়া উচিত গাঢ় লাল বা লালচে খয়েরি। আবার ধরুন বিচে বেড়াতে গেছেন।এক্ষেত্রে কিন্তু আউটফিটের সঙ্গে সঙ্গে ভোল বদলাবে আপনার নখও। ভাবুন তো, ইজি চেয়ারে বসে যখন সূর্যের উত্তাপ উপভোগ করবেন, তখন লালচে শেড বাছাই না করাই ভালো। তার চেয়ে বরং সমুদ্রের জলের সঙ্গে মিলিয়ে নীল বা সবজে ঘেষা রং বাছতে পারেন।

তবে নখ রাঙানোর আগে এবং পরে বেশ কিছু বিষয় লক্ষ্য রাখতে হয়। আর কিভাবে নখের নকশা ও যত্ন করবেন তা নিম্নে দেওয়া হলঃ

  • নেইল পলিশ লাগানোর আগেই বাছাই করতে হবে নেইল পলিশের রঙ। প্রথমেই নিজের ত্বকের সঙ্গে কী ধরনের রঙ মানানসই সে বিষয়ে সচেতন থাকতে হবে। উজ্জ্বল ত্বকে প্রায় সব ধরনের রঙই মানিয়ে যায়। তবে কিছুটা শ্যামলা রঙ এর ক্ষেত্রে বেশি হাইলাইট বা উজ্জ্বল রঙ বেছে না নেওয়াই ভালো।
  • বর্তমানে পোশাকের রঙ এর সঙ্গে মিল করার জন্য নেইল পলিশ পাওয়া যায়। লাল, গোলাপি, কমলা, খয়েরি, বেগুনি ছাড়াও নীল, হলুদ, সবুজ, রেডিয়াম কালার এবং সাদা-কালো নেইল পলিশ পাওয়া যাচ্ছে যেকোনও কসমেটিকসের দোকানেই। তবে নীল, সবুজ, হলুদ কারও পছন্দের তালিকায় না থাকলে পোশাকের রঙ এর সঙ্গে মানিয়ে যায় এমন যেকোনোও রঙই নখে ব্যবহার করা যায়।
  • নখের রং নির্বাচনের আগে কোথায় যাচ্ছেন, অবশ্যই সে বিষয়টি মাথায় রাখবেন। পার্টি বা অনুষ্ঠান হলে ভিন্ন বিষয়। অফিস, কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ে বেশি হাইলাইটিং বা উজ্জ্বল রং ব্যবহার না করাই ভালো।
  • nail-art-2

  • নতুন নেইল পলিশ ব্যবহারের আগে অবশ্যই আগের নেইল পলিশ ভালো করে তুলে ফেলতে হবে। এর জন্য প্রথমে ভালো রিমুভার তুলায় ভিজিয়ে নখে ঘষে রঙ তুলুন। তারপর হালকা গরম পানিতে শ্যাম্পু মিশিয়ে হাত ধুয়ে ফেলুন। হাত শুকিয়ে তবেই নতুন করে নেইল পলিশ লাগাতে হবে। সবসময় ভালো ব্র্যান্ডের নেইল পলিশ বেছে নিন। যা বেশি টেকসই হওয়ার পাশাপাশি নখেরও ক্ষতি করবে না।
  • অনেক সময় নখে সাদা সাদা দাগ পড়ে। এগুলোর অন্যতম একটি কারণ হতে পারে নেইল পলিশের কেমিকেল। এই কারণে ভালো ব্র্যান্ডের নেইল পলিশ বেছে নেওয়া জরুরী। একটানা নেইল পলিশ ব্যবহার করবেন না। নতুন নেইল পলিশ ব্যবহারের আগে অন্তত কিছুদিন নেইল পলিশ ছাড়াই থাকুন।
  • অনেকের ক্ষেত্রে দেখা যায়, নখ কিছুটা বড় হলেই ভেঙে যায় বা ফেটে যায়। এর প্রধান কারণ শরীরে ক্যালসিয়ামের অভাব। তাই ক্যালসিয়াম-জাতীয় খাবার এবং ‘ভিটামিন সি’ যুক্ত ফলমূল খেতে হবে। বেশিক্ষণ পানি নিয়ে কাজ করার পর নারিকেল তেল, অলিভ অয়েল, আমন্ড অয়েল একসঙ্গে মিশিয়ে, এর মধ্যে কিছুক্ষণ নখ ভিজিয়ে রাখুন। এরপর হাত ধুয়ে লোশন লাগিয়ে রাখলেও উপকার পাওয়া যায়।
  • সপ্তাহে একদিন অন্তত হাত এবং নখ পরিষ্কার করা উচিত। এর জন্য ভালো কোনো পার্লারে গিয়ে মেনিকিউর করানো যায়। আবার এ কাজটি ঘরে বসেই চট জলদি সেরে নিতে পারেন। হালকা গরম পানিতে কিছুটা লেবুর রস ও লবণ গুলিয়ে এর মধ্যে শ্যাম্পু মিশিয়ে হাত কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখুন। তারপর হাত পরিষ্কারের ব্রাশ দিয়ে হাত এবং নখের গোড়ায় ঘষে পরিষ্কার করতে হবে।
  • অনেক সময় কিউটিকলস বা মরা চামড়া নখের উপর জমে। এই সমস্যা থাকলে কিউটিকলস কাটার দিয়ে কেটে পরিষ্কার করে হাতে লোশন লাগিয়ে নিতে হবে। সপ্তাহে অন্তত ১ দিন এই পদ্ধতিতে হাত পরিষ্কার করলেই যথেষ্ট।
  • nail-art-3

  • আগে নখের ডিজাইন করতে বিভিন্ন রঙের নেইল পলিশ ব্যবহার করা হতো। এখন বিভিন্ন রঙের নেইল পলিশের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে বিভিন্ন ধরনের এলিমেন্ট, যার মাধ্যমে আনা হচ্ছে নিত্যনতুন সব ডিজাইন। নখের সাজ সাধারণত পোশাকের ওপর নির্ভর করে। অনেকেই দশ আঙুলে দশ রঙের নেইল পলিশ ব্যবহার করতে পছন্দ করেন। এতে সুবিধা হলো আপনার ড্রেস বা সাজের ওপর নির্ভর করতে হয় না। এভাবে নেইল পলিশ সাধারণত টিনএজারদের নখেই বেশি ভালো লাগে। অনেক সময় অনেকের নখের আকার ছোট ছোট থাকে। তাদের নখে কোনো ডিজাইন তেমন ফুটে ওঠে না। তারা এক্রোলিক নেইল লাগিয়ে নিতে পারেন। এই নখ মার্কেটে পাওয়া যায়। দিন ও রাতের পার্টির জন্য আলাদা আলাদা ডিজাইন করলে বেশি মানানসই লাগে।
  • নখ রাঙাতে রঙ এখন সীমানা অতিক্রম করেছে। এখন পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে হাত-পায়ের নখে নীল, সবুজ, রেডিয়াম, কালো-সাদা প্রায় সব রঙ শোভা পায়। রাঙানোর পাশাপাশি নখ ও হাতের যত্নের দিকেও এখন অনেকেই বেশ সচেতন। বাজারেও রয়েছে নানান ব্র্যান্ডের এবং বিভিন্ন দামের নেইল পলিশের সমাহার।
  • যাদের ঘরে বসে নখ সাজানোর সময় হয় না, তারা বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন কৃত্রিম নকশার নখ। গ্লু দিয়ে সুন্দর করে আটকে নিতে পারেন সেসব কৃত্রিম নখ। স্টিকারের ব্যবহারও বেশ সহজ। পছন্দমতো ডিজাইনের এক সেট স্টিকার রেখে দিতে পারেন সময় বাঁচাতে। স্টিকার আপনার নখে এক সপ্তাহ পর্যন্ত থাকে। বাড়িতে নিজেরা নকশা করতে না পারলে বিউটি স্যালোনের সাহায্য নেয়া যেতে পারে। সাধারণত দুই ধরনের নেইল আর্ট করানো হয়ে থাকে বিউটি পার্লারগুলোতে। চাইলে আপনি এক দিনের জন্যও সাজাতে পারেন অথবা পার্মানেন্টলি করালে তিন মাস বা চার মাসের জন্যও করাতে পারেন।
Afrin Mukti

Afrin Mukti

Afrin complete her MBA in marketing, beside this she love music and read lots of books. She also write about online marketing, Bangladesh fashion trend and anything that interested her. She is very dynamic and details oriented.
Afrin Mukti

Comments

লেখাটি পড়ে কেমন লাগলো ?

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY