নিয়মিত ব্যায়াম করে নিজেকে সুস্থ রাখুন

0
1097
নিয়মিত ব্যায়াম করে নিজেকে সুস্থ রাখুন
5 (100%) 1 vote

যারা নিয়মিত ব্যায়াম করেন তারা, যারা ব্যায়াম করেন না তাদের চেয়ে, হৃদরোগ ও স্ট্রোকের, ক্ষেত্রে ৩ গুণ বেশি ঝুঁকিমুক্ত। ব্যায়াম করলে বিশেষ করে স্ট্রোকের আশঙ্কা বহুগুণ কমে যায়। ব্যায়ামে হৃৎপিন্ডের পেশি শক্তিশালী হয়। ফলে একাধিক হৃদরোগ থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। যারা নিয়মিত শরীরর্চ্চা করছেন তাদের ব্লাডপ্রেসার, কোলেস্টেরল এবং শারীরিক ওজন সহনীয় মাত্রায় থাকে। আপনি যদি একজন হৃদরোগী হয়ে থাকেন, তাহলে আপনার চিকিৎসকের নির্দেশিত উপায়ে শরীরর্চ্চা করুন।

ব্যায়ামের জন্য ১৫ মিনিট বরাদ্দ রাখুন। বিষণ্নতা থেকে মুক্তি রোজ সকালে মাত্র ১৫ মিনিট ব্যায়াম মন মেজাজ রাখে দারুণ চনমনে। কর্মব্যস্ত এ যুগে নিজেকে নিয়ে ভাববার খুব একটা সময় পাওয়া যায় না। ব্যায়াম করা দরকার ঠিকই মনে করছেন কিন্তু জিমে যাওয়ার সময় পাচ্ছেন না। ভাবছেন ঘরে বসে কি আর ব্যায়াম সঠিক হবে? এছাড়া জিমে গিয়ে ব্যায়াম করলে যে উপকার পাওয়া যায় বাসায় বসে কি আর সেসব উপকারিতা পাওয়া যাবে?

ব্যায়াম করার কিছু উপকারিতা

  • বাড়িতে বেশিরভাগ সময় ব্যস্ত থাকা হয়। এই ব্যস্ততার মধ্যেও কিছুটা সময় বের করে নিয়ে ব্যায়াম করে নিতে হবে। বাড়িতে ব্যায়াম জিম ও পার্কের ব্যায়ামের তুলনায় থেকে খুবই উপকারি। কেননা জিম ও পার্কে বেশ কোলাহলপূর্ণ থাকে। অনেক সময় সেখানে ব্যায়ামের চেয়ে খোশগল্পই হয় বেশি। বাড়িতে আপনি নিরিবিলি ব্যায়াম সেরে নিতে পারবেন। এখানে আপনি নিজেই নিজের বসের ভূমিকা পালন করতে পারবেন।
  • বাড়িতে ব্যায়াম করলে আলাদা কাপড় পড়ারও দরকার নেই। বাসায় পড়া আরামদায়ক কাপড় পড়েই ব্যায়াম করতে পারবেন। আপনার জামা ছোট কিংবা বেশ আটসাট এসব নিয়ে সমালোচনা করার মতো বাসায় তো অবশ্যই কেও নেই।
  • আধা ঘন্টা জগিং বা দৌড়াদৌড়ি করা 45 মিনিট কোন জিমে সময় ব্যয় করার সমতুল্য । অন্যতম সেরা এই ব্যায়ামটি আপনি করতে পারেন যেটা আপনার বডি সিস্টেমকে উন্নত করে । আশ্চর্যজনক ভাবে এটা আপনার ঘুমকে অনেক সুন্দর ও আরামদায়ক করে তোলে।
  • গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে, জগিং শুধু আপনার স্বাস্থ্যকেই বাড়ায়না বরং আত্মবিশ্বাসকেও বাড়িয়ে তোলে । জগিং আপনার সারাটা দিন আত্মবিশ্বাস নিয়ে কাটাতে সাহায্য করে।
  • এটা সত্য যে জগিং করলে আপনি শারীরিক ও মানসিক ভাবে সুস্থ থাকবেন। আর আপনি যখন সুস্থ থাকবেন তখন আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বেড়ে যাবে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়লে আপনি ঘন ঘন অসুস্থ হবেন না।
  • ওজন কমানোর জন্য অন্যতম একটি ব্যায়াম হচ্ছে জগিং । যদি আপনি দ্রুত ওজন কমিয়ে ফেলতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই জগিং করতে হবে।
  • এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, নিয়মিত জগিং করলে মানসিক চাপ থেকে উপশম হয়। জগিং আপনার মন ও শরীর উভয়কেই ভাল রাখে যা মানসিক চাপ থেকে মুক্ত রাখে।
  • আপনি যদি প্রতিটা দিন জগিং দিয়ে শুরু করেন তাহলে লক্ষ্য করবেন যে , আপনি সারাটা দিনই ফুরফুরে হয়ে আছেন । জগিং বা ব্যায়ামকে অভ্যাসে পরিনত করতে পারলে আপনি নিজেকে কর্মক্ষম ব্যক্তি হিসেবে দাবি করতে পারবেন।
  • জগিং করলে আপনার হাড় ও পেশি শক্তিশালী হয় । এটা আপনার জীবনযাত্রা কে সহজ করে এবং শরীরের capacity ঠিক রাখে।
  • গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে, যেসব লোক নিয়মিত জগিং অথবা ব্যায়াম করে তারা দীর্ঘায়ু হয় এবং সাধারণ লোকদের চাইতে সুখিও হয় । যা তাদেরকে বেশিদিন বাঁচতে সাহায্য করে।
  • জগিং করার সময় যেমন অতিরিক্ত পথ পাড়ি দিতে হয় তেমনি আপনার জীবন চলার পথেও অতিরিক্ত পদক্ষেপ নেয়ার প্রবণতা বেড়ে যায়। যেটা আপনার লক্ষ্য পূরণে সাহায্য করে।
  • ব্যায়াম থেকে যেসব উপকারিতা পাওয়া যায় তার থেকে বেশি উপকারিতা পাওয়া যায় নিয়মিত সালাত আদায় করলে। আর তাছাড়া প্রত্যেক মুসলাম নর-নারীর ওপর সালাত ফরজ। সুতরাং বোঝাই যাচ্ছে যে সুস্থ দেহ ও মনের বিকাশের জন্য নিয়মিত ব্যায়াম কতখানি গুরুত্বপূর্ণ। তাই আসুন নিয়মিত সালাত আদায় করি এবং ব্যায়াম করি।
  • ব্যায়ামের ফলে আমাদের শরীরের প্রতিটি কোষে অতিরিক্ত অক্সিজেন ও পুষ্টি সরবারাহ হয়। এর ফলে আমাদের হৃদযন্ত্র ও রক্তনালি সচল থাকে। এর ফলে সারা শরীরে একটি সুস্থ প্রাণস্পন্দন ও উদ্দীপনা সৃষ্টি হয়। এটা আমাদের কর্মস্পৃহা বাড়ায়।

ব্যায়াম নিয়ে সাধারণ মানুষদের মধ্যে প্রচলিত রয়েছে বেশ কিছু ভুল ধারণা। এর মধ্য থেকে জেনে নিন কিছু ভুল ধারণা ও এর পেছনের প্রকৃত তথ্য সম্পর্কে

best-exercise-for-adults2

  • ১. অ্যারোবিক এক্সারসাইজ ক্লান্ত করে নিয়মিত ব্যায়ামের ফলে ফিটনেট এবং এনার্জি লেভেল বেড়ে যায়। ফলে স্ট্রেস এবং ক্লান্তি কমে।
  • ২. ব্যায়াম খুব সময় সাপেক্ষ ব্যাপার:
    সপ্তাহে ৩-৫ দিন আধা ঘণ্টা সময় দিলেই যথেষ্ট। একবারে সম্ভব না হলে দুইবারে করুন। আর পাঁচটা কাজের মতোই ব্যায়ামও দৈনিক রুটিনের অংশ করে ফেলুন।
  • ৩. সব ব্যায়ামেরই একই ফল:
    বিভিন্ন ব্যায়ামের ফল আলাদা আলাদা। নিয়মিত অ্যারোবিক এক্সারসাইজ হৃদপিণ্ডের কার্যক্রম ভালো রাখে এবং ক্যালরি ক্ষয় করতে সাহায্য করে। রেজিস্ট্যান্স ট্রেনিং এক্সারসাইজ শরীরে শক্তি বাড়ায়, আবার ফ্লেক্সিবিলিটি এক্সারসাইজ স্থিতিস্থাপকতা বাড়াতে সাহায্য করে।
  • ৪. বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথে ব্যায়ামের প্রয়োজনীয়তা কমে:
    ব্যায়াম প্রত্যেকের জন্য প্রয়োজন। বয়স, চাহিদা এবং ফিটনেস লেভেল মাথায় রেখে ব্যায়ামের পরিকল্পনা করা উচিত।
  • . ব্যায়াম করার জন্য দক্ষতা দরকার:
    সব ব্যায়ামেই দক্ষতার প্রয়োজন নেই। হাঁটা, দৌড়ানো, জগিং, ফ্রি-হ্যান্ড সহজেই করা যায়।
  • ৬. বেশি ব্যায়াম মানে বেশি মজবুত হাড় বেশি ব্যায়ামে হাড়ের ক্ষয় হয় এবং হাড় কমজোর হয়ে পড়ে।

ইয়োগা বিশেষজ্ঞ সারা ইভানহো বলেছেন, যোগব্যায়ামে ক্লান্ত শরীর চনমন করে ওঠে। বিশেষ করে দীর্ঘক্ষণ বসে থাকলে এ চর্চা বেশ ফলপ্রসূ। যেসব ভঙ্গি বক্ষের ব্যায়াম করায় সেগুলো উজ্জীবক সে গুলোর অভ্যাস করতে হবে। কারণ এতে শ্বাসগ্রহণ ক্ষমতা প্রসারিত হয় এবং স্নায়ুতন্ত্র উদ্দীপ্ত হয়। আর কিছু কিছু ভঙ্গি আছে যাতে শরীরকে এমনভাবে নোয়ানো হয় যে, হৃৎপিণ্ড- রেখা থেকে মাথা নিচুতে থাকে, এতে মগজে রক্ত চলাচল বেড়ে গিয়ে শরীর উজ্জীবিত হয়।

নিউইয়র্কের হিউমার প্রোজেক্টের পরিচালক জোযেল গুডম্যান বলেন, বৈজ্ঞানিক তথ্য-প্রমাণ রয়েছে হাসির নিরাময়ী ও উজ্জীবক ক্ষমতার পক্ষে। তিনি বলেন, একটি ভাল হাসির অনেক ইতিবাচক ফলাফল রয়েছে শরীরের ওপর , হাসিতে শরীর উজ্জীবিত হয়৷ শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা জন্মে, হাসি শ্বাসক্রিয়ার উন্নতি ঘটায় , হাসি স্ট্রেস হরমোনের মান কমিয়ে ফেলতে সক্ষম৷

Afrin Mukti

Afrin Mukti

Afrin complete her MBA in marketing, beside this she love music and read lots of books. She also write about online marketing, Bangladesh fashion trend and anything that interested her. She is very dynamic and details oriented.
Afrin Mukti

Comments

লেখাটি পড়ে কেমন লাগলো ?

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY