প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে ভ্রমণ করুন ভারত

0
423
প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে ভ্রমণ করুন ভারত
3 (60%) 2 votes

পুরো পৃথিবীর অসাধারণ সুন্দর স্থানগুলো যেনো হাতছানি দিয়ে ডাকে। কিন্তু অনেক সময় সাধ থাকলেও সাধ্য এবং ব্যস্ততার কারণে হয়ে উঠে না ঘুরে বেড়ানোর। দেখা হয়ে উঠে না বিশ্বের অনিন্দ্য সুন্দর স্থানগুলো।
তবে অসাধারণ সুন্দর কিছু দর্শনীয় স্থান দেখতে চাইলে তা আপনার হাতের নাগালের কাছেই রয়েছে। এইসকল স্থানের সৌন্দর্য উপভোগ করতে যেতে হবে না পৃথিবীর ওপর প্রান্তে। পাড়ি দিতে হবে না সাত সমুদ্র, তেরো নদী। পাশের দেশ ভারতেই দেখতে পাবেন অতুলনীয় সুন্দর দর্শনীয় অনেক স্থান। ভারতের শিমলা, দার্জিলিং ধরণের চেনাজানা স্থানগুলো নয়। একটু লুকোনো, একটু অজানা অতুলনীয় সুন্দর কিছু স্থান। একটু সময় বের করে নিয়ে উপভোগ করে আসতে পারেন ভারতের অপূর্ব সুন্দর স্থানে।

(১) জিরো ভ্যালী
অসাধারণ সবুজে ঢাকা পাহাড় এবং উপত্যকা দেখতে ঘুরে আসুন অরুণাচল প্রদেশের জিরো ভ্যালী। শান্ত পরিবেশে ঘুরে আসুন ব্যস্ততা থেকে একটু ছুটি নিয়ে।

(২) গোমুখ
ভাগীরথী নদীর কাছে, গাঙ্গোত্রীর অতুলনীয় সুন্দর প্রাকৃতিক পরিবেশ এবং পাহাড়ের ওপর ক্যাম্পিং করতে চাইলে ঘুরে আসতে পারেন ভারতের গোমুখের পাহাড় ও উপত্যকা থেকে।

(৩) কাসাউলি
বরফে ঢাকা স্থানে একটু উষ্ণতা খুঁজে পেতে সঙ্গীকে নিয়ে ঘুরে আসতে পারেন ভারতের হিমাচলের কাসাউলির নদী এবং পাহাড়ের কোল ঘেঁষে থাকা অসাধারণ পরিবেশে।

(৪) তাওয়াং মনাস্ট্রি
মানসিক শান্তি খুঁজলে চলে যেতে পারেন অরুণাচল প্রদেশের অপর একটি স্থান তাওয়াং মনাস্ট্রিতে। শান্তিপূর্ণ অসাধারণ পরিবেশে হারিয়ে যেতে চাইলে আজই টিকেট কেটে ফেলুন ভারতের।

india-2

(৫) যগ ফলস
অতুলনীয় সৌন্দর্যমণ্ডিত ঝর্ণার সৌন্দর্য উপভোগ করতে চাইলে ঘুরে আসতে পারেন ভারতের দ্বিতীয় উচ্চতম ঝর্ণা যগ ফলস থেকে। এর অবস্থান ভারতের সাগারাতালুকে।

(৬) খাজুরাহো
প্রাচীন ভারতের সৌন্দর্য এবং ঐতিহাসিক স্থানের খোঁজে ঘুরে আসুন মধ্য প্রদেশের এই অসাধারণ স্থানটিতে।

(৭) কুচ
লোকালয় থেকে দূরে কোথাও, অপূর্ব সুন্দর স্থানে কিছুটা সময় পার করে দিতে চাইলে বেড়িয়ে আসুন ভারতের গুজরাটে অবস্থিত স্থান কুচে।

(৮) হাম্পি
সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক পরিবেশে সূর্যাস্ত ও সূর্যোদয়ের শোভা দেখতে চলে যেতে পারেন কর্নটাকের হাম্পির গ্রামগুলোতে।

(৯) বানারাস
ছবিটিতে একটু নজর বুলিয়ে নিলেই বুঝতে পারবেন কেনো ঘুরে আসতে বলা হচ্ছে এই অপরূপ সুন্দর স্থানটি থেকে। উত্তর প্রদেশের এই অপূর্ব স্থানটি সত্যিই অনেক দর্শনীয়।

india-3

(১০) লে-শ্রীনগর হাইওয়ে
দুপাশের চোখজুড়ানো সৌন্দর্য দেখতে দেখতেই পার হয়ে যাবে অনেকটা সময়। জম্মু-কাশ্মীর থেকে লাদাখ পর্যন্ত চলে গিয়েছে এই হাইওয়ে।

(১১) মেলা-পার্বণ
এই অঞ্চলে বিভিন্ন উপজাতির বাস, তাই উৎসবেরও আধিক্য। খৃস্টান ধর্মাবলম্বীরা মহা সমারোহে পালন করেন বড়দিন, গুড ফ্রাইডে, ইস্টার, ইত্যাদি। ইংরেজি নববর্ষেও আনন্দমুখর হয়ে ওঠেন পাহাড়িরা। খাসি উপজাতির মানুষ পালন করেন শাদ সুকমিনসিয়েম পরব। কা পমব্ল্যাং নংক্রেম অথবা নংক্রেম নৃত্যও অতি প্রসিদ্ধ খাসি উৎসব। জয়ন্তীয়া উপজাতীয়দের পার্বণ বেহদিয়েংখ্‌লাম পালিত হয় প্রতি বছর জুলাই মাসে। গারোরা পালন করেন ওয়াংগালা উৎসব যা আদতে সূর্যের উপাসনা।

(১২) ভান্ডারদরা
পশ্চিমঘাট পর্বতের পাদদেশে প্রভরা নদীর তীরে পাহাড়, জলপ্রপাত, সবুজে ঘেরা এই স্থানে প্রাণভরে নিঃশ্বাস নিলেই মন ভালো হয়ে যাবে। শহরের ভিড় থেকে দূরে এই লেক ও পাশের জলপ্রপাত এখানকার প্রধান আকর্ষণ।

(১৩) চক্রতা
উত্তরাখণ্ডের দেরাদুনের একটি ক্যান্টনমেন্ট শহর এই চক্রতা। বিশেষজ্ঞদের তত্ত্বাবধানে ট্রেকিং থেকে শুরু করে, প্যারাসেইলিং, রক ক্লাইম্বিং ইত্যাদির সুব্যবস্থা রয়েছে এখানে। আর পাশাপাশি রয়েছে অফুরন্ত প্রাকৃতিক সৌন্দর্য।

(১৪) চিপলুন
মুম্বাই গোয়া হাইওয়ের ধারে রত্নাগিরি জেলায় অবস্থিত এই চিপলুন শহরটি। মুম্বাইয়ের কোলাহল ছাড়িয়ে এমন একটি জায়গায় উইকএন্ড কাটানোর মজাই আলাদা। এখানকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের পাশাপাশি গণপতি পুলে, কর্ণেশ্বর মন্দির, গুয়াঘর বিচ সবমিলিয়ে এই ছোট্ট শহরকে আরও মোহময়ী করে তুলেছে।

(১৫) গাণ্ডীকোটা
অন্ধ্রপ্রদেশের পেন্নার নদীর তীরে একটি ছোট গ্রাম এই গাণ্ডীকোটা। পাথুরে এলাকা, সঙ্গে গহন অরণ্যই এই জায়গার সৌন্দর্য।

india-4

(১৬) গরুমারা
গরুমারার জঙ্গল বাঙালিদের কাছে অত্যন্ত পরিচিত। গণ্ডার, হাতি ঢুকলেই দেখতে পাবেন সকলে। তবে পরিবারকে নিয়ে এর ভিতরে রাত কাটিয়েছেন কি? এই অভিজ্ঞতা একেবারে অনন্য, তাতে সন্দেহ নেই।

(১৭) ঝাঞ্জেলি
হিমাচলপ্রদেশের এই জায়গাটি ট্রেকিংয়ের জন্য পরিচিত। দেবদারু ও ফার গাছে মোড়া এই অঞ্চলটি শীতের সময়ে অনন্য রূপ নেয়।

(১৮) লেপচাজগত
দার্জিলিংয়ের কাছে খানিক অপরিচিত এই জায়গাটির শোভা কোনও দিক থেকে কম নয়। নিচে ওক-পাইনের জঙ্গল ও উপরে কাঞ্চনজঙ্ঘার নৈসর্গিক রূপ, এককথায় অপূর্ব।

(১৯) রোহরু
হিমাচল প্রদেশে অবস্থিত এই জায়গাটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১৫২৫ মিটার উঁচুতে অবস্থিত। এই জায়গা সুন্দর রূপের পাশাপাশি আপেলের জন্যও বিখ্যাত।

(২০) সিমলিপাল
ওড়িশার একটি অভয়ারণ্য এই সিমলিপাল। এর মধ্যেই রয়েছে দুটি সুদৃশ্য জলপ্রপাত। বাঘ, হাতি ইত্যাদির বাস এখানে। ঘন সবুজ অরণ্য ও ধূ ধূ সবুজ প্রান্তরে এলেই মন ভালো হয়ে যায়।

india-5

(২১) দার্জিলিং
শীতের শুরু বা শেষের দিকে দার্জিলিং ভ্রমণের জন্য ভালো। দার্জিলিং এ পাহাড়ি ধস নামে বর্ষা মৌসুমে। শীত বা গরমে সে ঝুঁকি নেই। ঠাণ্ডার এড়াতে গরম কাপড় নেয়া জরুরি। হোটেল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে পরামর্শ করে চলাফেরা করলে দালাল বা হারিয়ে যাওয়ার শংকা থাকে না। ঢাকা থেকে দার্জিলিং থাকা, খাওয়া, যাতায়াত বাবদ প্রতিজনে সর্বোচ্চ খরচ ১৫ হাজার টাকা হতে পারে। বুড়িমারি দিয়ে খরচ কম। কলকাতা হয়ে গেলে খরচটা বাড়বে। ট্যুরিজম কোম্পানি প্যাকেজ ট্যুর করে থাকে। দার্জিলিং শহরের লাডেন-লা রোডের মার্কেটে ক্রয়-ক্ষমতার মধ্যে শীতের পোশাক, হাতমোজা, কানটুপি, মাফলার, সোয়েটারসহ লেদার জ্যাকেট, নেপালি শাল এবং শাড়ি, অ্যান্টিক্স ও গিফট আইটেম, লেদার সু, সানগ্লাস। প্রতারনার শংকা নেই। তবে ভ্রাম্যমাণ ফেরি থেকে শাল, শাড়ি না কেনাই ভাল। যেতে বা আসতে শিলিগুড়ির বিধান মার্কেট থেকেও কেনাকাটা করা যায়।

Afrin Mukti

Afrin Mukti

Afrin complete her MBA in marketing, beside this she love music and read lots of books. She also write about online marketing, Bangladesh fashion trend and anything that interested her. She is very dynamic and details oriented.
Afrin Mukti

Comments

লেখাটি পড়ে কেমন লাগলো ?

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY