মেকআপ ছাড়াই সুন্দর চোখ

0
813
মেকআপ ছাড়াই সুন্দর চোখ
5 (100%) 2 votes

চোখ যে মনের কথা বলে। আর সেই চোখকেই আমরা নানা রকমের মেকআপের আড়ালে ঢেকে রাখি। আমরা চোখের প্রতি একরকম অন্যায়ই করে ফেলি। তাই নয় কি? তবে মেকআপ ছাড়া ও যে চোখ সুন্দর দেখাতে পারে সে কথা আমরা ভুলে যাই। সেই চোখ সুন্দর দেখাতে মেকআপ দরকার হয় না, দরকার শুধু একটুখানি যত্নের। টানা টানা চোখদুটোকে কৃত্রিম আবরণে না ঢেকে আমরা চাইলেই চোখ দুটোর নিয়মিত যত্ন নিয়ে চোখ কে সুন্দর করে তুলতে পারি। দেখবেন নিয়মিত যত্নের মাধ্যমে মেকআপ ছাড়াই আপনি পেয়েছেন সুন্দর একজোড়া চোখ। চলুন জেনে নেয়া যাক কিভাবে-

আইল্যাশ কার্ল করে নিন
চোখের সৌন্দর্য বাড়িয়ে দিতে আইল্যাশের তুলনা নেই। মেকআপ দিলেও বিউটি এক্সপার্টরা চোখ বড় ও আকর্ষণীয় দেখাতে আইল্যাশ কার্ল করে নেয়ার পরামর্শ দেন। এ কথা সত্যি যে, প্রাকৃতিকভাবেই সবার আইল্যাশ সুন্দর হয় না। তবে যত্ন বা পরিচর্যার মাধ্যমে আইল্যাশ তুলনামূলকভাবে সুন্দর হয়ে উঠতে পারে। কারণ লম্বা বাঁকানো আইল্যাশ চোখকে যেন করে তুলে যেন আরো আকর্ষণীয়। আর এখানে যেহেতু আপনি মেকআপ ব্যবহার করছেন না সেহেতু চোখ সুন্দর দেখাতে আইল্যাশ কার্ল করা অপরিহার্য। তাই যতটা সম্ভব কার্ল করার চেষ্টা করুন। তা আপনার রূপে বিশেষ মাত্রা যোগ করবে। মেকআপ ছাড়া আইল্যাশ কার্ল করতে একটি আইল্যাশ কার্লার কিনে নিতে পারেন। পাপড়িতে কার্লার লাগিয়ে সুন্দর করে উপর দিকে টানবেন। এতে চোখের পাতাগুলো যদি অবিন্যস্ত থাকে, সেটা সুন্দর সাজানো হয়ে যাবে। কিন্তু যদি আপনার কাছে আইল্যাশ কার্লার না থেকে থাকে তাহলেও চিন্তার কারন নেই। প্রাকৃতিক ভাবে ও কিভাবে আপনার আইল্যাশ কার্ল করতে পারবেন তাও জানিয়ে দিচ্ছি।

১। আপনার দুই আঙ্গুল কে ঘষুন। একটু গরম হলে আপনার পাপড়ি কে আঙ্গুল দিয়ে উপরের দিকে চাপ দিয়ে ধরুন। দশ সেকেন্ডের জন্য ধরে রাখুন এবং যদি প্রয়োজন হয় তাহলে পুনরাবৃত্তি করতে পারেন।

২। উষ্ণ গরম পানিতে একটি চামচ কিছুক্ষন ফেলে রাখুন। একটু গরম হয়ে আসলে সেটি দিয়ে আপনার পাপড়ি কে উপরের দিকে হাল্কা করে টেনে চাপ দিয়ে রাখুন। এবার দেখুন তো পার্থক্য।

৩। এবার টুথ ব্রাশ ব্যাবহার করবেন। জি ঠিক এ শুনেছেন। আপনার টুথব্রাশ এর ব্রিসেল কে হাল্কা গরম পানিতে ভিজিয়ে নিন। অতিরিক্ত পানি ঝরিয়ে নিন। এবার পাপড়ি কে উপরের দিকে আঁচড়ান।

৪। তাছাড়া আঙুলে সামান্য পেট্রোলিয়াম জেলি নিয়ে চোখের পাপড়িতে নিচ থেকে উপরের দিকে ব্রাশ করে নিলে দেখতে সুন্দর লাগবে।

চোখের রঙ অনুযায়ি কাপড় এর রঙ বাছাই করতে পারেন
আপনার চোখের রঙ কি বাদামি, নীল না লালচে ধরনের। সে অনুযায়ী কাপড় পরিধান করে দেখুন তো কত আকর্ষনীয় দেখাবে।

নীল চোখ যাদের তারা কালো এবং বিভিন্ন মাত্রার নীল শেড (যেমনঃ গাঢ় নীল কাপড় পরলে আপনার চোখ দেখতে আরও নীল দেখাবে আবার হালকা নীল পড়লে আপনার চোখ হাল্কা নীলই মনে হবে) বেগুনি, গোলাপী এবং হালকা সবুজ দিয়ে শুরু করুন।

বাদামি চোখের অধিকারীরা কমলা এবং লাল বা পীচ এর মত সমন্বয়, হালকা বাদামি, গাঢ় নীল, ল্যাভেন্ডার, সোনালী, এবং সবুজ পরতে পারেন।

লালচে চোখ যাদের তারা কালো, নেভি ব্লু এবং অন্যান্য ডার্ক শেড বা কমলা এবং ল্যাভেন্ডার দিয়ে চেষ্টা করতে পারেন।

eyes-2

আইব্রো নিয়ে কাজ করুন
বাড়তি আইশ্যাডো, মাশকারা, আইলাইনার লাগাবেন না মানলাম। কিন্তু আইব্রো দুটি তো শেপ করে নিতে পারেন। দেখবেন, চোখ দুটো নতুন মাত্রা পাবে। 

আই ড্রপ ব্যবহার করুন
আপনার চোখ যদি রক্তরাঙা বা ক্লান্ত মনে হয় সেক্ষেত্রে লালভাব উপশম করে আপনার চোখ পরিষ্কার করবে এমন হাইড্রেটিং আইড্রপ পাওয়া যায়। সেটি ব্যবহার করে দেখতে পারেন। কিন্তু অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে নিবেন।

ডার্ক সার্কেল এড়াতে চাই পর্যাপ্ত ঘুম
আপনার চোখের চারপাশে ত্বক অতিরিক্ত পাতলা, যার মানে হচ্ছে এটা অত্যন্ত সংবেদনশীল এবং একটি নির্ঘুম রাতের প্রভাব আপনার চোখের নিচে ভাল ভাবেই ফুটে উঠে। তাই প্রতিদিন কমপক্ষে আট ঘণ্টা ঘুম অত্যন্ত জরুরি। এতে চোখ সতেজ থাকে এবং চোখের চারপাশের ত্বকও ভালো থাকে দীর্ঘদিন। শুধু চোখ নয়, চেহারার তারুণ্য ধরে রাখতেও পর্যাপ্ত ঘুম দরকার।

নিয়মিত ম্যাসাজ
হ্যাঁ চোখের নিচের স্কিন আলতো করে ম্যাসাজ করুন । ফোলা চোখ কারই বা ভালো লাগে। তাই চোখের নিচের স্কিন নিয়মিত ম্যাসাজ করুন। এতে আপনার চোখের পাফিনেস দূর হবে।

আই ক্রিম ব্যবহার করুন
হ্যাঁ চোখ সুন্দর রাখতে আই ক্রিম এর বিকল্প নেই। আপনার ত্বক এর সাথে মানানসই ও ত্বক এর প্রয়োজনীয়তা অনুযায়ী ক্রিম ব্যবহার করুন। কিন্তু এমন ক্রিম বাছাই করুন যেটিতে ময়েশ্চারাইজার ও ভিটামিন ই আছে।

লবন ও মিষ্টির পরিমান কমিয়ে দিন খাবার থেকে

জি যদি আপনি অতিরিক্ত লবন খাবারে ব্যবহার করে থাকেন তাহলে সেটি কমিয়ে দিন। এছাড়াও এলকোহোল, অতিরিক্ত মিষ্টি ও আপনার স্কিন কে ড্যামেজ করতে পারে।

ঘরোয়া পদ্ধতিতে পরিচর্চা করুন
আমরা তো বাজার থেকে অনেক ক্যেমিকেল যুক্ত পন্য ব্যবহার করি। এবার একটু নিম্ন লিখিত ঘরোয়া পদ্ধতিতে পরিচর্চা করে দেখুন তো কি ফলাফল হয়।

১। একটি শসা ফ্রিজ এ রেখে দিন। ঠান্ডা হলে দুই টুকরো চিকন করে কেটে ১০-১৫ মিনিট চোখে দিয়া রাখুন। এটি আপনার চোখের ফোলা ভাব এবং কালো দাগ দূর করে চোখ কে করে তুলবে সতেজ। ১ সপ্তাহ ব্যবহার করেই দেখুন পার্থক্যটা নিজেই বুঝে যাবেন।

২। ঠান্ডা দুধে একটি কটন বল ভিজিয়ে চোখে লাগান। ১০ মিনিট পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে ও চোখের ফোলা ভাব কমে যায় এবং কালো দাগ দূর হয়।

৩। আমরা সবাই তো কম বেশি চা পান করি। টি ব্যাগ গুলো কি করেন ব্যবহারের পর। নিশ্চই ফেলে দেন। না এখন আর ফেলবেন না। একটি ব্যবহৃত টি-ব্যাগ ঠাণ্ডা করে চোখের উপর দিয়ে রাখুন ১০ মিনিট। এতে চোখের চারপাশের ত্বক টানটান থাকবে।

এবার চোখের যত্নে এক্সট্রা কিছু টিপস

১। পর্যাপ্ত পরিমাণে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে চোখে ঝাপটা দেওয়া উচিত। এতে ঠাণ্ডা থাকার পাশাপাশি চোখ পরিষ্কার হবে। তাছাড়া দেখতেও সতেজ দেখাবে।

২। প্রতিদিন প্রচুর পানি পান করতে হবে এবং খাবারের তালিকায় ফল ও সবজি রাখতে হবে।

৩। পর্যাপ্ত ঘুম জরুরি।

৪। যদি আপনি মেক আপ করে থাকেন তাহলে দিন শেষে চোখের মেকআপ অবশ্যই তুলে ফেলুন। ত্বকের অন্য অংশের মতো চোখের ত্বকেরও মেকআপ তুলে নেয়া জরুরি। এতে চোখও রেস্ট পায়। এ ছাড়া চোখের ত্বক খুব সেনসেটিভ। তাই মেকআপ তোলার সময় আস্তে আস্তে তুলোর সাহায্যে মেকআপ তুলতে হবে।

একজোড়া সুন্দর চোখ মানেই একটি সুন্দর পৃথিবী। কারণ চোখ দিয়েই আমরা পৃথিবীর সৌন্দর্য দেখতে পাই। মুখের ত্বকের যত্নে অনেক মনোযোগী মানুষও প্রায় সময়ই তাদের চোখের কথা ভুলে যায়। চোখের দেখভালের খবর মনে পড়ে তখনই, যখন চোখ নিয়ে কোন সমস্যায় পরি। কিন্তু এই চোখের সৌন্দর্য বজায় রাখতেও খুব বেশি যে ঝামেলা পোহাতে হয় তাও কিন্তু না। চাইলে সপ্তাহের এক বা দুই দিনের সামান্য একটু যত্নেই সুন্দর চোখজোড়াকে প্রাণবন্ত রাখতে পারি। তাই চোখ এর যত্নের চেষ্টা আমাদের সকলেরই করা উচিত।

আর তাই আর্টিকেলটি অনুসরন করে দেখতে পারেন ফলাফল দেখে নিজেই চমকে যাবেন।

Jannatul Jarin

Jannatul Jarin

Jannatul Jarin is very friendly person and she completed her B.B.A from Daffodil International University in Marketing Major. Besides She was very conscious about fashion trend and beauty. She likes to smile herself and make laugh to others. She also write about online marketing. She is Self-Dependent, hard working and focused.
Jannatul Jarin

Comments

লেখাটি পড়ে কেমন লাগলো ?

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY