লেহেঙ্গা না ঘাগড়া – কোনটা পড়বেন ?

0
2931
লেহেঙ্গা না ঘাগড়া – কোনটা পড়বেন ?
5 (100%) 2 votes

লেহেঙ্গা এবং ঘাগড়া একই মনে হলেও এদের মাঝে যথেষ্ট পার্থক্য আছে। বর্তমান সময়ে মেয়েরা গ্ল্যামার সচেতন। দৈনন্দিন পরিধান হিসেবে লেহেঙ্গা এবং ঘাগড়ার ব্যবহার দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। মানুষ এগুলো পরিধান করে আরাম ও স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে।

লেহেঙ্গা এবং ঘাগড়া এই দুটো পোশাকই ভারত থেকে এসেছে। ভারতের গুজরাট, রাজস্থান, হিমাচল, প্রদেশ, হরিয়ানা, উত্তর প্রদেশ লেহেঙ্গা ও ঘাগড়ার জন্য প্রসিদ্ধ। সেলিব্রেটি থেকে শুরু করে সাধারন মানুষ এর প্রথম পছন্দ হল এই দুটো ড্রেস। বিয়ে ও জমাকালো অনুষ্ঠানে যদি আমরা সাধারন পোশাক পড়ি আমাদের বেমানান মনে হবে। কিন্তু এখন মেয়েরা বিয়ে অথবা জন্মদিনের পার্টিতে অর্থাৎ যে কোন জমকালো পার্টিতে নিজেকে আকর্ষণীয় করে তোলার জন্য লেহেঙ্গা এবং ঘাগড়া অনেক জনপ্রিয়।

সকল মেয়েদের কাছে সেরা পোশাক। বিবাহের সময় এখন মেয়েরা প্রথমেই পছন্দ করে লেহেঙ্গা। এখন আমাদের আলোচনার মূল বিষয় হল লেহেঙ্গা এবং ঘাগড়া্র মাঝে পার্থক্য –

লেহেঙ্গা

লেহেঙ্গা এবং চলি একই পোশাকের অংশ। লেহেঙ্গা হল পোশাকের নিচের অংশ এবং চলি হচ্ছে লেহেঙ্গার উপরের অংশ যা একই রঙের হয়ে থাকে। এর সাথে একটি ওড়না থাকে যা দিয়ে নিজেকে আচ্ছাদিত করা হয়। লেহেঙ্গার খ্যাতি বেরেছে সেলিব্রেটিদের সুবিশাল ব্যবহারের কারনে। সাধারন মানুষ বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই সেলিব্রেটিদের নকল করে। আজ লেহেঙ্গা যে কোন বিবাহের অনুষ্ঠানে গুরুত্ব পায়। লেহেঙ্গা সিল্ক, ক্রেপ কাপড়, মখমল, নেট এর কাপড়ের বেশি হয়ে থাকে এবং তার সাথে ভারী নকশার কাজ। লেহেঙ্গা যতটা ভারি কাজের উপর হবে ততটা আকর্ষণীয় এবং জমকালো দেখাবে।

ghagra-choli

ঘাগড়া

ঘাগড়া ও চলি একই পোশাকের দুটি অংশ হয়। ঘাগড়া হচ্ছে পোশাকের নিচের অংশ এবং চলি পোশাকের উপরের অংশ। এটা সাধারনত কোন নকশা ছাড়া হয়ে থাকে। আর সাথে একটি ওড়না থাকে। ঘাগড়া এবং চলি জনপ্রিয় কিন্তু যারা সমাজের নিচের অংশে বসবাস করে সাধারনত তারা এই পোশাক বেশি পড়ে থাকে। ভারতীয় সিনেমাই আপনারা বেশিরভাগ সময় দেখবেন যে গ্রামের অনুপ্রানিত দৃশ্য বা আইটেম গানে এই পোশাক পড়তে বেশি দেখা যায়। অর্থাৎ ভারতে গ্রামে এই পোশাকটা বেশি জনপ্রিয়। বিয়ের অনুষ্ঠান যে কোন গ্রাম্য অনুষ্ঠানে মহিলাদের এই পোশাকটি পড়তে বেশি দেখা যায়।

উপরের অংশ পড়লে বোঝা যায় যে, লেহেঙ্গা ও ঘাগড়ার মাঝে যথেষ্ট মিল আছে। তারপরেও এদের মাঝে সুক্ষ কিছু পার্থক্য বিদ্যমান যা নিচে তুলে ধরা হল:

১। লেহেঙ্গা অধিক নজর কারতে সক্ষম ঘাগড়ার থেকে কারন লেহেঙ্গা কোমরের থেকে শুরু করে অনেক ফিট এবং শেষ দিকে একটি পুরনাঙ্গ পরিধি পায়। আর একটি ঘাগড়ার তুলনামুলকভাবে পরিধি অনেক কম থাকে এবং এটি একটি আলাদা পার্ট।

২। লেহেঙ্গা অনেকটা শরীরের সাথে ফিট করে তৈরি করা হয়। লেহেঙ্গাতে অনেক ডিজাইন নকশা থাকে। অন্যদিকে ঘাগড়া দৈনন্দিন পড়ার জন্য একটি আরামদায়ক পোশাক। এতে নকশার পরিমান অনেক কম থাকে।

৩। একটি লেহেঙ্গার নকশা কারু-কাজ অনেক বেশি থাকে, এর জমকালো আভা আপনার আকর্ষণীয়তা আরও বাড়াতে সহায়তা করে। এর সেলাই এর কোন তুলনা হয় না। অন্যদিকে ঘাগড়া একটি আলগা অংশ, যা যে কোন ভাবেই পড়া যায়।

৪। লেহেঙ্গা সাধারনত নেট, মখমল, সিল্ক, জর্জেটের সাথে জমকালো নকশার সাথে সমন্নয়ে তৈরি হয়। অন্যদিকে ঘাগড়া অতি সাধারনভাবে তৈরি হয়। সচারচর খুব দামি ঘাগড়া দেখা যায় না।

বিয়ের পোশাক যা-ই হোক না কেন, জমকালো হবে কিন্তু ভারী হলে চলবে না। যাতে করে বড়সড় যেকোনো পার্টিতেও আপনি অনায়াসেই সেটি পরতে পারবেন। আর বিবাহের ক্ষেত্রে বেশিরভাগ মেয়েদের বর্তমানে পছন্দ লেহেঙ্গা। আর অন্যদিকে মেয়েরা সবসময় পড়ার জন্য ঘাগড়া পছন্দ করে। তবে দুটোই বেশ জনপ্রিয়। আশাকরি লেহেঙ্গা ও ঘাগড়ার মাঝে পার্থক্য আপনাদের সামনে প্রতীয়মান হয়েছে।

Afrin Mukti

Afrin Mukti

Afrin complete her MBA in marketing, beside this she love music and read lots of books. She also write about online marketing, Bangladesh fashion trend and anything that interested her. She is very dynamic and details oriented.
Afrin Mukti

Comments

লেখাটি পড়ে কেমন লাগলো ?

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY