৭টি উপায় প্রমাণ করে যে আপনি উদ্যোক্তা হিসাবে বিশ্বস্ত

0
461
৭টি উপায় প্রমাণ করে যে আপনি উদ্যোক্তা হিসাবে বিশ্বস্ত
5 (100%) 7 votes

বিশ্বাস একটি শক্তিশালী ব্যবসায়িক সম্পর্ক, ব্যক্তিগত এবং পেশাদার উভয়ই ক্ষেত্রে আস্থা গড়ে তুলতে সাহায্য করে। আর সুস্থ্য সম্পর্ক সুখের চাবিকাঠি হচ্ছে বিশ্বাস। একজন বিশ্বস্ত উদ্যোক্তা সুখি হওয়ার পাশাপাশি কর্মচারীদের বিশ্বাস আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়। তারা আরও বেশি অর্থ উপার্জন করতে পারেন। একজন ব্যবসায়ী উদ্যোক্তা দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে বিরাট ভূমিকা পালন করেন। একজন বিশ্বস্ত উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য ব্যবসা সম্পর্কে ভালো ধারণা ও প্রয়োজনীয় দক্ষতা থাকা দরকার। যারা সফল হতে চান তাদের মাঝে অবশ্যই কিছু বৈশিষ্ট্য থাকা উচিত।
সুতরাং আপনি কিভাবে আস্থা গড়ে তুলতে সক্ষম হবেন? এখানে ৭টি পদক্ষেপ দেওয়া হল-

১। কর্মদক্ষতা প্রদর্শন করুন

একটি বিশ্বস্ত উদ্যোক্তা হয়ে উঠার প্রথম পদক্ষেপ হল একটি দক্ষতা মাস্টার হওয়া। সবার আগে আপনার সহযোগীদের সাথে ব্যবসা করতে হবে। আপনাকে তাদের প্রমাণ করতে হবে যে, আপনি কি জানেন এবং আপনি কি করতে যাচ্ছেন?
যখন আপনি মনে করবেন এর জন্য আপনি উপযুক্ত, আপনি ফলাফল প্রদর্শন করতে পারবেন এবং অন্যদের আপনার জ্ঞান বিতরন করতে পারেবেন। যদি আপনি কিছুই না জানেন তাহলে অন্যদের কিভাবে শিখাতে পারবেন। তাই আপনার কর্মদক্ষতা প্রদর্শন করার আগে নিজকে একজন দক্ষ মাষ্টারে পরিনত করুন।

২। আপনার প্রতিশ্রুতি রাখুন

যখন আপনার আস্থা অর্জন সম্ভব হয় তখন আপনার উপর নির্ভরশীলতা বাড়ে। যদি আপনার জানার পরিমান কমে যায় তাহলে আপনার দক্ষতা কমে যাবে এবং আপনি সকলের আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হবেন না। নির্ভরযোগ্যতা হচ্ছে আপনি যা বলেন আপনি কি তাই করছেন? আপনি যখন কোন পণ্য চালু করবেন সবার প্রথমে আপনার গ্রাহকের আস্থা অর্জন করতে হবে। আপনি আপনার ব্যবসার উপর যে প্রতিশ্রুতি দিবেন তা আপনাকে অক্ষরে অক্ষরে পালন করতে হবে।
আপনার জন্য পরামর্শ হল আপনি এমন কোন প্রতিশ্রুতি দিবেন না যেখানে আপনি আপনার ৫টি প্রতিশ্রুতির মাঝে ৪টা রাখলেন আর ১টি ভঙ্গ করলেন। একজন সফল উদ্যোক্তার মুল লক্ষ্যই শুধু টাকা উপার্জন থাকে না। একজন বড় ব্যবসায়ী অনেক অর্থ আয় করতে পারে তার সাথে সাথে একজন সত্যিকারের সফল বিশ্বস্ত উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য আপনাকে আপনার কথা রাখতে হবে। যে প্রতিশ্রুতি আপনি গ্রাহককে করেছেন।

৩। আত্মবিশ্বাসী হয়ে কথা বলুন

আস্থা গড়ে তুলতে চান? তাহলে আপনি আত্মবিশ্বাসী হয়ে কথা বলুন, আপনি সবার সাথে আপনার মতামত শেয়ার করতে জড়তা বোধ করবেন না। বোঝা যাচ্ছে যে আপনি আমি যখন কোন ব্যবসা শুরু করবো তখন নিজেকে অনেক ভীরু মনে হবে। কিন্তু ধীরে ধীরে আপনি আত্মবিশ্বাসী হয়ে কথা বলতে পারবেন সবার সামনে, বড় একটি হল রুমে, বড় একটি ষ্টেজে এবং ব্লগে। আত্মবিশ্বাসী হয়ে কথা বলুন এবং সবার সাথে মেশার চেষ্টা করুন। আপনি যদি অদক্ষ হন তাহলে আত্মবিশ্বাসী হয়ে লিখতে ও বলতে পারবেননা। একজন বিশ্বস্ত উদ্যোক্তা তার গ্রাহকের সাথে ব্যবসা নিয়ে আত্মবিশ্বাসী থাকা উচিত।

৪। ভালো শ্রোতা হোন

একজন ভালো আত্মবিশ্বাসী শ্রোতা হোন এবং একজন ভালো শ্রোতা হওয়ার জন্য আপনার এই জিনিসটি জরুরী। শৈশব থেকে আমাদের চিন্তা চেতনা বৃদ্ধি পায়। তখন থেকেই শিক্ষা হয় আমরা কিভাবে আরেকজনের কথা মনোযোগ দিয়ে শুনব। আমাদের প্রথম প্রবৃত্তি অন্যদের দ্বারা বুঝতে হবে। যখন আপনি আরেকজনের কোন গুরুত্বপূর্ণ কথা বলবেন তখন আপনার অনেক কথা মিস হয়ে যেতে পারে। একজন ব্যবসায়ী হিসেবে আপনাকে গ্রাহকের ভালো লাগা মন্দ লাগা সব কিছু সম্পর্কে শুনতে হবে।

৫। সহানুভূতি প্রদর্শন

গ্রাহকদের আস্থা গড়ে তোলার জন্য আপনাকে সহানুভূতি প্রদর্শন করতে হবে। আপনি শুধু মুনাফার জন্য ব্যবসা করছেন না। একজন ভালো উদ্যোক্তা যদি সঠিকভাবে গ্রাহককে সেবা প্রদান করতে না পারে তাহলে বিশ্বাস অর্জন করবেন কিভাবে। সহানুভূতি একটি জীবনব্যাপী অভ্যাস। যা আপনার পক্ষে একবারেই আয়ত্ত করা সম্ভব না। কিন্তু আপনি যখন জানলেন তখন থেকেই শুরু করতে পারেন। ধীরে ধীরে সহানুভুতির মাধ্যমে আপনি সবার আস্থা অর্জন করুন। তাহলে আপনি একজন বিশ্বস্ত উদ্যোক্তা হতে পারবেন।

৬। দুর্বল মন মানসিকতা

অনেক ব্যবসায়ীর মাঝে এই প্রবনতা দেখা যায়। দুর্বলতা আপনার চরিত্রের একটি দুর্বল দিক এবং তা আপনাকে কাটিয়ে উঠতে হবে। পৃথিবীতে যারা সফল ব্যবসায়ী হিসেবে বড় হয়েছেন তারা শুধুমাত্র মনের দিক থেকে অনেক শক্তিশালী ছিল বলেই। অর্থ থাকলেই ভালো উদ্যোক্তা হওয়া যায় না। উদাহরন স্বরূপ কয়েকজন সফল উদ্যোক্তার নাম বলা যায়। বিল গেটস এবং ডাঃ ইউনুস তারা তাদের কর্মের গুনে আজ সফল হতে পেরেছেন। বিল গেটস বর্তমান সফল ব্যবসায়ীদের মাঝে একজন এবং সকল উদ্যোক্তাদের জন্য আদর্শ। আমাদের দেশের ডক্টর ইউনূসের নাম কে না জানে। সকল সফল উদ্যোক্তাদের মাঝে তিনি উল্লেখযোগ্য। আর যে কোন ব্যবসায় ঝুঁকি গ্রহন করতে হয়। আপনাকে একজন সফল উদ্যোক্তা হতে হলে দুর্বল হলে চলবে না।

৭। সত্যবাদী হোন

সবসময় সত্য কথা বলা সহজ না। কিন্তু একজন সফল উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য আপানাকে সত্যবাদী হতে হবে। আপনি যদি আপানর ব্যবসা সম্বন্ধে মিথ্যা তথ্য গ্রাহককে দিন তাহলে তাদের ঠকানো হবে। তাহলে আপনি কখনই একজন সফল বিশ্বস্ত ব্যবসায়ী হতে পারবেন না। আপনি নিজেকে একজন বিশ্বস্ত ব্যবসায়িক উদ্যোক্তা হিসেবে প্রমাণ করতে পারবেন যদি আপনি সত্যবাদী হবেন। জনসাধারণের মনে ব্যবসা সম্পর্কে ইতিবাচক চিন্তা আনার জন্য আপনাকে ব্যবসা সম্পর্কে সঠিক তথ্য দিতে হবে।

পরিশেষে বলা যায় যে আপনি সফল ও বিশ্বস্ত হতে পারবেন যদি আপনার মাঝে উপরোক্ত গুণাবলী গুলো থাকে। এছাড়াও সঠিক ভাবে কাজ নির্বাচন করুন, সৎ ভাবে কাজ করুন এবং কাজের প্রতি আস্থা তৈরি করুন, পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ করতে হবে, ধৈর্যশীলতার সাথে কাজ করতে হবে, গ্রাহকের সন্তুষ্টির দিকে খেয়াল রাখতে হবে, যে কোন পরিস্থিতে ঝুঁকি গ্রহন করার মন মানসিকতা থাকতে হবে তাহলেই তো আপনি একজন বিশ্বস্ত উদ্যোক্তা হতে পারবেন। এছাড়াও একজন ক্রেতার বিশ্বাস অর্জন করার জন্য তার সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ আচরন করতে হবে। একজন বিশ্বস্ত উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য আপনার নিজের দিকটা দেখা পাশাপাশি আপনার প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীদের জীবন-যাপনের উপর খেয়াল রাখতে হবে, গ্রাহকরা আপনার পণ্যটি পেয়ে উপকৃত হচ্ছে কিনা সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে, দেশের অর্থনৈতিক পরিবর্তনের উপর ও উন্নতির উপর নজর রাখতে হবে।

Afrin Mukti

Afrin Mukti

Afrin complete her MBA in marketing, beside this she love music and read lots of books. She also write about online marketing, Bangladesh fashion trend and anything that interested her. She is very dynamic and details oriented.
Afrin Mukti

Comments

লেখাটি পড়ে কেমন লাগলো ?

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY